আর্টিকেল পাবলিশ করার পূর্বে যেসব বিষয় খেয়াল করা উচিত

content publishing guideline

Hello Blogger Friends, আপনার সাথে কি এমন হয়েছে, আপনি আর্টিকেল পাবলিশ করার পর ভাবেন কিছু বাদ পরে গেল নাকি? আরো মনে করেন ওই পোষ্টের মধ্যে কিছু সমস্যা আছে বুঝি! এরকম আগে প্রায় সময় আমার সাথেও হতো, কারণ কোন কিছু রিসার্চ না করেই লিখতে বসতাম, কোথায় কি কি লিখতাম নিজেই জানতাম না।

পোষ্ট পাবলিশ করার পর ভাবতাম, আরো কিছু ভিতরে এড করলে ভাল হত, আপনারো যদি এমন সমস্যা হয়ে থাকে, তাহলে এই পোষ্টটি সম্পুর্ন পড়তে থাকুন, কারণ এখানে আমি শেয়ার করব আমি নিজে কিভাবে আমার আর্টিকেল গুলো SEO Optimized করে লিখি, Article Publish করার পূর্বে কোন কোন বিষয় খেয়ার রাখি।

আপনি যদি আপনার ব্লোগ সাইটে ভাল করে পোষ্ট পাবলিশ করতে চান, তাহলে পোষ্ট পাবলিশ করার পূর্বে নিচে দেয়া সব স্টেপ ভাল করে Follow করবেন।

যখন আমি কোন পোষ্ট লিখি, তখন সেটার একটা Format বানায় নেই, পোষ্টের মধ্যে কি কি কভার করব, কোন কোন হেডিং রাখব সব সাজায় রাখি। আপনিও যদি স্টেপ বাই স্টেপ Follow করে পোষ্ট লিখেন তাহলে সব হাই কুয়ালিটি আর্টিকেল হবে

এমন ভাবে লেখার চেষ্টা করবেন, যাতে Blog Post Publish করার পর আবার সাথে Edit করার প্রয়োজন না পরে। পোষ্ট সম্পুর্ন লেখার পরেই পাবলিশ করবেন। পাবলিশ করার পর যদি Edit করার প্রয়োজন পড়ে তাহলে করে নিতে পারেন কোন সমস্যা নেই।

আর্টিকেল পাবলিশ করার পূর্বে যেসব বিষয় খেয়াল রাখবেন

আর্টিকেল লেখা শুরু করতে হয় Keyword Follow করে, যে কীওয়ার্ড এ আপনি গুগলে রেংক করবেন। যে কিওয়ার্ডের টপিক ধরে লিখবেন, যেমন ” ওয়েবসাইট বানানোর পর কি কি করা উচিত ” সেই বিষয়ে ভাল করে জেনে নিতে হবে, তারপর পোষ্ট লেখা শুরু করতে হবে।

হাল্কা ভাবে কিছু পয়েন্ট দেখে নেই পোষ্ট পাবলিশ করার পূর্বে

  1. প্রথমে কিওয়ার্ড সিলেক্ট করে নিন।
  2. সেই টপিক সম্পর্কে ভাল করে সব বিষয়ে জেনে নিন।
  3. পোষ্ট লেখার পর ড্রাফটে সেভ করে রাখুন।
  4. বেসিক SEO করে নিন, Title, Focus Keyword, Meta Tag, Permalink, Image
  5. Proof Reading করে নিন।
  6. তারপর পাবলিশ করুন।

এসব বিষয় যদি এক এক করে আপনি Follow করে পোষ্ট লিখেন, তাহলে আপনার সব পোষ্ট অনেক কুয়ালিটিফুল হবে। পোষ্ট পাবলিশ করার পূর্বে ON Page SEO টাও ভাল করে দেখে নিবেন।

তো চলুন বিস্তারিত ভাবে জানি সব পয়েন্ট গুলো, পোষ্ট পাবলিশ করার সময় এই পয়েন্টগুলি দেখে নিবেন।

পোষ্ট টাইটেল সুন্দর করে লিখা

পোষ্ট পাবলিশ করার পূর্বে খেয়াল করে নিবেন, আপনার পোষ্টের টাইটেল কিরকম দিয়েছেন। চেষ্টা করবেন সবসময় আকর্ষনীয় টাইটেল দেয়ার, টাইটেল সুন্দর না হলে গুগলে রেংক করার পরেও কিন্তু আপনি ট্রাফিক পাবেন না।

এটিও খেয়াল রাখতে হবে, এমন কিছু টাইটেল এ লিখে দিলেন আকর্ষনীয় করার জন্য, যেটি পোষ্টের মধ্যেই নেই। তখন আপনার ওয়েবসাইটে খারাপ প্রভাব পড়বে।

তাই ছোট করে সুন্দর টাইটেল লিখবেন, যেটি দেখে সবাই ক্লিক করে, তাদের নির্ধারিত বিষয়গুলি জানতে পারে।

Grammar Spelling Mistake চেক করে নেয়া

Blog Post Publish করার পূর্বে পোষ্টের মধ্যে Grammar Mistake, ভুল বানান গুলি ঠিক করে নিবেন, অনেক ব্লোগার ভাই আছেন যারা এসব খেয়াল করেন না। যেটি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য মারাত্বক ক্ষতিকর। কারণ কোন ভিজিটর আপনার পোষ্ট পড়তেছে, পড়ার সময় দেখতেছে বানানে অনেক ভুল, গ্রামার ঠিক নেই।

তখন খুব খারাপ Impression পড়বে। আপনার Affiliate Site হলে সেখান থেকে কিছু নেয়ার প্লান করলেও
পোষ্টের অবস্থা দেখে, অন্য ওয়েব পেজ ভিজিট করবে।

চাইলে আপনি আপনার কোন পরিচিত ছোট ভাই, অথবা Family Member এর কাউকে দিয়ে Proof Reading করে নিতে পারেন। তারপর যতগুলো ভুল আছে সেগুলো ঠিক করে নিলেন। অথবা আপনি পোষ্ট ড্রাফটে সেভ করে ৩/৪ ঘন্টা পর ঠান্ডা মাথায় পোষ্টটি পড়তে থাকবেন একজন রিডার হিসাবে। কোথাও কিছু ভুল দেখতে পেলে সাথে Currection করে নিবেন।

ছোট ছোট প্যারা করে লিখা

পোষ্ট লেখার সময় Short Paragraphs আকারে লেখার চেষ্টা করবেন, যাতে ভিজিটর পড়ার সময় Comfortable Feel করবে, পোষ্টের মধ্যে Heading, Sub Heading ব্যবহার করা জরুরি, পোষ্টটি দেখতেও সুন্দর লাগে, আর ভিজিটর পড়ার সময় সহজ ভাবে বুঝতে পারে।

পোষ্টের মধ্যে যেসব তথ্য দিতে চান, সব কিছু ক্লিয়ার ভাবে লেখার চেষ্টা করবেন, গুরুত্বপুর্ন কোন ওয়ার্ড হলে বোল্ড অথবা হাইলাইট করে দিতে পারেন।

পোষ্টের মধ্যে Internal Linking করা

যেকোন পোষ্ট লেখার সময় অবশ্যই interlinking করবেন, ইন্টার্নাল লিংক করার ফলে এক পোষ্ট থেকে অন্য পোষ্টে ট্রাফিক জুশ পাস হয়ে থাকে। যেটি ওয়েবসাইটের রেংকিংয়ে প্রভাব ফেলে এবং ওয়েবসাইটের Bounce Rate কমাতে সাহায্য করে।

Internal Link করার সময় খেয়াল রাখতে হবে, যেখানে লিংক দেয়া সম্ভব শুধু সেখানে লিংক দিবেন, সব খানে লিংক দেয়ার দরকার নেই, তখন পোষ্টের Format এ পরিবর্তন হয়ে যাবে। শুধু লিংকে দেখা যাবে।
যেটি গুগল খারাপ চোখে দেখবে।

Silo Structure Follow করলে সেভাবে Internal Link করার চেষ্টা করবেন, যাতে সাইলো স্ট্রাকচার নষ্ট না হয়।

Category ব্যবহার করা

আপানার পোষ্টের জন্য Relative Category ব্যবহার করা, যার ফলে ভিজিটর সেই ক্যাটাগরিতে আরো কি কি পোষ্ট আছে সব পড়তে পারবে, ওয়েবসাইটের ডুরেশন টাইম বৃদ্ধি পাবে।

এক পোষ্টের মধ্যে বেশি পরিমান ক্যাটাগরি ব্যবহার করবেন না, চেষ্টা করবেন ২ টা থেকে ৩টার মধ্যে রাখার।

Image Alt Tags ব্যবহার করা

পোষ্টের মধ্যে কম করে হলেও একটি ইমেজ ব্যবহার করতে হবে এবং সেটির মধ্যে Alt Tags দিতে হবে।

Google Image Read করতে পারে না যে ইমেজটি কোন বিষয়ের, Alt Tags Search Engine কে জানায় ইমেজটা কোন বিষয়ের। এজন্য পোষ্টের মধ্যে Alt Tags দেয়া জরুরি।

Focus Keyword পোষ্টের মধ্যে ব্যবহার করা

Keyword দিয়ে পোষ্ট / ওয়েবসাইট রেংক করাতে হয়, সেজন্য পোষ্টের মধ্যে Focus Keyword ব্যবহার করা জরুরি।

যে কিওয়ার্ড Follow করে পোষ্ট লিখতেছেন, সেটি পোষ্টের মধ্যে হুবুহু ২/৩ বার দেয়ার চেষ্টা করবেন। কতবার লিখবেন সেটা অনেক বিষয়ের উপর ডিপেন্ড করে, সবার মতামত ভিন্ন, কেউ ১ হাজার ওয়ার্ডের মধ্যে ১ বার ব্যবহার করতে বলে, কেউ বা ২ বার।

নরমালি লেখার সময় যত যায়গায় লিখতে পারেন দিয়ে দিবেন কিন্তু Keyword Stuffing করতে যাইয়েন না।

Focus Keyword ব্যবহার করবেন Poster Title, permalink, Meta Discription, Post এর প্রথম paragraph ১৫০ লাইনের মধ্যে।

Call To Action ব্যবহার করা পোষ্টের মধ্যে

পোষ্টের শেষের দিকে CTA মানে Call To Action ব্যবহার করতে ভুলবেন না। কারণ Call To Action এর সাহায্য ভিজিটর ঐ পোষ্ট পড়ার পর কি করতে চায়, যেমন আপনি যদি কোন প্রডাক্টের রিভিউ লিখে থাকেন, তাহলে আপনি চাবেন ভিজিটর পোষ্টটি পড়ে একটি Dicission নিয়ে প্রডাক্টটি ক্রয় করুক।

অথবা Call To Action ব্যবহার করে পোষ্টের মধ্যে কমেন্ট নিতে পারেন, Newsletter এ Subscribe করায় নিতে পারেন।

অন্য ওয়েবসাইটের আর্টিকেল পোষ্টের মধ্যে না লিখা

উপরের পয়েন্টের মধ্যে কিছু বাদ দিলেই, এই পয়েন্টটি Must Be Follow করতে হবে। Copy Content কখনোই পোষ্টের মধ্যে ব্যবহার করা যাবে না

যখন পোষ্ট লিখবেন তখন নিজের মত করে সব লেখার চেষ্টা করবেন, বাকিরা কিভাবে লিখছে সেখান থেকে শুধু আইডিয়া নিবেন। তারা কোন কোন টপিক কভার করেছে, কিরকম হেডিং ব্যবহার করেছে সেগুলো নোট করে নিবেন।

অন্য ওয়েবসাইট থেকে কনটেন্ট কপি করা মানে, নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারার মত অবস্থা
তাই কপি করা থেকে ১০০ হাত দূরে থাকবেন।

পোষ্টের মধ্যে সব কিছু কভার করা

যে বিষয়ে পোষ্ট লিখতেছেন Indepth সবকিছু কভার করার চেষ্টা করবেন, যাতে কোন কিছু বাদ না যায়। পোষ্ট লেখার পর একটু ভাল করে দেখে নিবেন, যে টপিক নিয়ে লিখতেছেন একজন ইউজার হিসাবে সব কিছু দেয়া আছে কিনা।

ভিজিটর হিসাবে পড়তে থাকুন, যেই বিষয় জানতে চাচ্ছেন তা এই পোষ্টের মধ্যে পাচ্ছেন কিনা, কোথাও কোন সমস্যা মনে হলে ঠিক করে নিন।

Permalink SEO এর জন্য অনেক জরুরি, চেষ্টা করবেন ছোট করে পার্মালিংক লেখার, যাতে দেখেই বুঝা যায় এই পোষ্টটি কোন বিষয়ে।

আপনি যদি পার্মালিংক না দেন, তাহলে ডিফল্ট ভাবে পোষ্ট টাইটেল পার্মালিংক হয়ে যাবে, যেটি অনেক বড় অগছালো লাগবে।

পোষ্ট পাবলিশ করার পর URL Changle করলে অনেক সময় 404 Error দেখতে পাবেন, যেটি ওয়েবসাইটের জন্য ভাল না, তাই চেষ্টা করবেন পোষ্ট পাবলিশ করার পূর্বেই Permalink Change করার।

Blogger.com এ যেসব ওয়েবসাইট আছে সেগুলো তো Publish করার পর আর Edit করতে পারবেন না।

শেষকথা

সম্পুর্ন পোষ্ট পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ, এই কয়টি পয়েন্ট আর্টিকেল পাবলিশ করার পূর্বে অবশ্যই চেক করে নিবেন, প্রত্যেকটি স্টেপ সঠিক ভাবে Follow করলে আপনার সব পোষ্ট পড়তে ভাল লাগবে এমনকি গুগলেও রেংক পেতে সাহায্য করবে।

আশা করি পোষ্টটি আপনার ভাল লেগেছে, শেয়ার করতে পারেন আপনার ব্লোগার বন্ধুদের সাথে, আর কেমন লেগেছে টিপস গুলো কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

বাংলায় সব একটি শিক্ষনীয় ওয়েবসাইট । যেখানে আপনি নতুন নতুন টেক নিউজ, BLogging, SEO,Affiliate Marketing, Social Media Marketing, Youtube Marketing সম্পর্কে পোষ্ট পাবেন। আরো পাবেন আপনার পছন্দের Theme And Plugin কিভাবে Customization, Bug Error Fix করবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here